Author Topic: ১২০ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেল সহজ  (Read 50 times)

Mehedi hasan

  • Jr. Member
  • **
  • Posts: 50


সিঙ্গাপুরভিত্তিক প্রতিষ্ঠান গোল্ডেন গেট ভেঞ্চারের কাছ থেকে পর্যায়ক্রমে বিনিয়োগ হিসেবে ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি টাকায় ১২০ কোটি টাকা) অর্থায়ন পেয়েছে বাংলাদেশের অনলাইন রাইড শেয়ারিং ও টিকিটিং প্ল্যাটফর্মে জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান সহজ।
নতুন এই মূলধন নিজেদের গ্রাহক অর্জন ও রাইড শেয়ারিং ব্যবসার বিস্তৃতিতে কাজে লাগাবে সহজ।

বুধবার রাজধানীর প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সহজ গণমাধ্যমের কাছে তাদের নতুন বিনিয়োগকারীদের পরিচয় করিয়ে দেয়। একই সঙ্গে রাইড শেয়ারিং সার্ভিসে গাড়িসেবা চালু করারও ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

দৈনন্দিন যাতায়াতে রাজধানী ঢাকার যানজট থেকে মুক্তি পেতে গ্রাহকদের জন্য অ্যাপের মাধ্যমে গাড়ি ও মোটরসাইকেল বুকিং রাইড শেয়ারিংয়ের সেবা দিচ্ছে সহজ। পাশাপাশি দূরপাল্লার বাস, ফেরির টিকিট থেকে শুরু করে সিনেমার টিকিটও বুকিং দেয়া যাচ্ছে সহজের ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপে।

কোনো প্রকার ভোগান্তি ছাড়াই একই অ্যাপে গ্রাহকদের দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় যাবতীয় সেবা প্রদান করাই প্রতিষ্ঠানটির লক্ষ্য। গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী রাইড শেয়ারিং সার্ভিস, বাস ও সিনেমার টিকিটসহ সব সুবিধা স্মার্টফোনের ‘সুপার অ্যাপ’-এর মাধ্যমে ডিজাইন করার পরিকল্পনা নিয়েছে সহজ।

এ প্রসঙ্গে সহজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মালিহা কাদির বলেন, আমাদের স্লোগান হচ্ছে ‘জীবনটাকে সহজ করুন’। ২০১৪ সালে আমরা যখন যাত্রা শুরু করেছিলাম আমাদের লক্ষ্যই ছিল গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদান করা। ২০১৪-তে আমরা টিকিট সেবা ও এ বছর আমরা রাইড শেয়ারিং সার্ভিস নিয়ে এসেছি। এবার আমরা আকর্ষণীয় ‘সুপার অ্যাপ’ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহজ দেশি-বিদেশি অভিজ্ঞ বিনিয়োগকারীদের সমর্থন পাচ্ছে এবং আমি মনে করি এটি খুব শিগগিরই আমাদের লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করবে।

গোল্ডেন গেট ভেঞ্চারের অংশীদার জাস্টিন হল বলেন, বাংলাদেশের গ্রাহকসেবা ও পরিবহন খাতে যুগান্তকারী প্ল্যাটফর্মের অংশ হিসেবে মালিহা ও তার দলে সম্পৃক্ত হতে পেরে আমরা সত্যিই সম্মানিত।

তিনি বলেন, উন্নয়নের রূপরেখায় বাংলাদেশের সম্ভাবনা বেশ প্রসারিত। শহুরে জনসংখ্যার ঘনত্বের তুলনায় এখানকার গ্রাহকসেবায় ডিজিটাল প্রবৃদ্ধি, গ্রাহকদের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়া নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। গ্রাহকের সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় আমি মনে করি, সহজ-এর ব্যবসা প্রসারের পরিকল্পনা সঠিক সময়ে উপযুক্ত সিদ্ধান্ত হিসেবেই গ্রহণযোগ্যতা পাবে।

সহজকে উদ্দেশ করে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, সহজ-এর সৃজনশীল উদ্যোগগুলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। প্রযুক্তি খাতে দেশের স্টার্টআপ দৃশ্য যখন ক্রমবর্ধমান হারে উন্নয়নের দিকে এগোচ্ছে, ঠিক তখন এই বিনিয়োগ ১৬ কোটি মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থান পরিবর্তনে সহায়তা করবে। আমি মনে করি, এটি আমাদের দেশের প্রযুক্তিগত ইকোসিস্টেমে একটি উল্লেযোগ্য ধাপ বলেই বিবেচিত হবে। বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী এম আমিনুল ইসলাম বলেন, বৈদেশিক সরাসরি বিনিয়োগের হার গত তিন বছরে তিনগুণ বেড়েছে। ভেঞ্চার ক্যাপিটাল বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এটাই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। আমরা আমাদের নতুন বিনিয়োগকারীদের স্বাগত জানাই এবং মালিহা ও তার দলের সাফল্য কামনা করছি।

দক্ষিণ এশিয়ার দ্রুতবর্ধনশীল অর্থনৈতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের আত্মপ্রকাশের ঠিক সন্ধিক্ষণেই পর্যায়ক্রমিক এই বিনিয়োগের আগমন।

গত ২০ বছর ধরে বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে ৭ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে এবং শীঘ্রই মধ্যমআয়ের দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

বর্তমানে ‘সহজ’-এ প্রযুক্তি, পরিচালনা ও বিপণনে ২০০-এর বেশি অভিজ্ঞ কর্মকর্তা কর্মরত আছেন।

সহজ বাংলাদেশের একটি শীর্ষস্থানীয় অনলাইন রাইড শেয়ারিং এবং টিকিটিং প্ল্যাটফর্ম। এই স্টার্টআপটির নতুন বিনিয়োগকারী হিসেবে যুক্ত হয়েছে গোল্ডেন গেইট ভেঞ্চারস, ফাইভ হান্ড্রেড স্টার্টআপস, লিনিয়ার ভেঞ্চার ক্যাপিটাল এবং এশিয়ান অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টরস কু বুন হিউই। এ মুহূর্তে সহজ সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বর্ধনশীল রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান যেখানে ১০ লাখেরও বেশি ব্যবহারকারী ও ৫০ হাজারের বেশি চালক রয়েছেন।

গোল্ডেন গেট ভেঞ্চারস গোল্ডেন গেট ভেঞ্চারস দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার নতুন বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি। ২০১১ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটি এশিয়ার সাতটি দেশে ৩০টিরও বেশি প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ই-কমার্স, পেমেন্ট, মার্কেটপ্লেস, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ও এসএএএস প্ল্যাটফর্ম।

ফাইভ হান্ড্রেড স্টার্টআপস ফাইভ হান্ড্রেড স্টার্টআপস একটি বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান। যার লক্ষ্য পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মেধাবী উদ্যোক্তাদের খুঁজে বের করে আর্থিক সাহায্যের মাধ্যমে তাদের সুপ্রতিষ্ঠিত করা। সিলিকন ভ্যালিতে এর প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই প্রতিষ্ঠানটি ২ হাজারের বেশি প্রতিষ্ঠানে ৪টি বৈশ্বিক তহবিল ও ১৪টি ক্ষুদ্র তহবিলের মাধ্যমে বিনিয়োগ করেছে। দক্ষিণ এশিয়াতে ৫০০ ডুরিয়ান তহবিলের মাধ্যমে ১৫০টির ও অধিক প্রতিষ্ঠানে ফাইভ হান্ড্রেড স্টার্টআপস এ পর্যন্ত বিনিয়োগ করেছে।